ফেসবুক চলছে আর্থিক প্রতারণার নতুন চক্র-জানুন নইলে খোয়াতে পারেন সব টাকা

আমি আপনির মত এক সাধারণ ফেসবুক ইউসার, তনিস্থা দত্ত। ফেসবুকে তার বন্ধু সংখ্যা প্রায় হাজার খানেক। যাদের অধিকাংশই তার পরিচিত। হঠাৎ একদিন তার এক কাছের বন্ধুর ফোন এল, যে কিনা তার ফেসবুক ফ্রেন্ডও বটে। বন্ধু বলল তনিস্থা নাকি তার কাছে টাকা ধার চেয়েছে জরুরি প্রয়জনে। শুনেই ওই তরুণী অবাক; সে বন্ধুকে জানাল এমন কোনও মেসেজই সে পাঠায় নি। এমনকি, পরে তার আরও কয়েক বন্ধুর কাছে এমনি টাকা চাওয়ার মেসেজ গেছে বলে জানতে পারে তরুণী!

সম্প্রতি এই ঘটনার শিকার হয়েছে শহরের অনেকেই। কিছুদিন আগেই প্রাক্তন সংসদ কুনাল ঘোষের সাথেও এই একই ঘটনা ঘটেছে। ইতিমধ্যে এই ব্যাপারে তিনি অভিযোগ জানিয়েছেন লালবাজারে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই তদন্ত শুরু করেছে সাইবার ক্রাইম ডিপার্টমেন্ট। তদন্তকারীরা জেনেছেন, অভিযোগকারীর ছবি ও নাম ব্যাবহার করে কেউ ফেসবুকে অ্যাকাউন্ট খুলে অনেকের কাছে টাকা চেয়ে মেসেজ পাঠানো হয়েছে। ফেসবুকে চেনা মানুষের সাথে কিছু অচেনা লোকজনও রয়েছে। নানা অসুবিধার বাহানা দিয়ে প্রায় সকলকেই মেসেজ করছে তারা।

এরকম অনেক ঘটনাই ঘটে চলেছে একের পর এক। অন্যের অ্যাকাউন্ট ব্যাবহার করে ফ্রেন্ডলিস্টে থাকা লোকেদের টাকা ধার চেয়ে মেসেজ পাঠানো হয়েছে। এমনকি, অনলাইন ওয়ালেটের নাম্বার পাঠিয়েও টাকা চাওয়া হচ্ছে। এই ফাঁদে পা দিয়ে এখনও কেউ টাকা খুইয়েছে বলে এমন অভিযোগ এখনও আসেনি। যেসব নাম্বার পাঠানো হয়েছে সেগুলির থেকে সুত্র খুজছে তদন্তকারী সংস্থা।

দেখা গেছে শহরের বেশির ভাগ জালিয়াতি কেসেই জড়িত আছে ভিন রাজ্য। এই ক্ষেত্রেও কোনও ভিন রাজ্যের দল জড়িয়ে আছে বলে প্রাথমিক অনুমান পুলিশদের। তদন্তকারীদের বক্তব্য, বর্তমানে ফেসবুক আর মেসেঞ্জার দুটি আলাদা করে ইন্সটল করতে হয় বলে অনেকেই ফেসবুক ইউস করলেও মেসেঞ্জার তেমন ভাবে ব্যাবহার করে না। আর সেখানেই সুযোগ নিচ্ছে এই প্রতারক দলগুলি।

সতর্ক থাকতে কি করণীয়? ১। ফেসবুক মেসেঞ্জারে কেউ টাকা ধার চেয়ে মেসেজ করলে তৎক্ষণাৎ প্রোফাইল ইউজারের সাথে যোগাযোগ করে জানুন সে ওই মেসেজ টি আদেও করেছে কি না, ২। সঠিক ভাবে না জেনে পাঠানো অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠাবেন না, ৩। ফেসবুক ফ্রেন্ড অথচ কখনও কথা হয়নি এমন কেউ মেসেজ করে টাকা চাইলে সেটি এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন, ৪। প্রোফাইলের মালিককে এই ব্যাপারে সতর্ক করার চেষ্টা করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *